বাংলাদেশের আইনের ধারা ও শাস্তি | চুরির মামলার শাস্তি ও ধারা

বাংলাদেশের আইনের ধারা ও শাস্তি

বাংলাদেশের আইনের ধারা ও শাস্তি

  1. বসতবাড়ি থেকে কোন জিনিস চুরি করা হলে দন্ডবিধি ৩৮০ ধারায় তাকে শাস্তি দেওয়া হবে। এতে জেল অথবা জরিমানা হতে পারে।
  2. চুরির উদ্দেশ্য কাউকে খুন করলে দন্ডবিধি ৩৮২ ধারায় জেল অথবা ৩৯৬ ধারায় মৃত্যুদণ্ড অথবা জরিমানা হতে পারে।
  3. বন্ধ পাত্র অথবা দোকান ভেঙে চুরি করলে দন্ডবিধি ৪৬১ অথবা ৪৬২ ধারায় জেল অথবা জরিমানা হতে পারে।
  4. পরিহিত বা বাহির, কারো সম্পত্তি চুরি অথবা চুরি করার চেষ্টা করলে দন্ডবিধি ৩৫৬ ধারায় জেল অথবা জরিমানা হতে পারে।
  5. চোরের দল গঠন অথবা চোর দের দলে যোগদান করলে ৪০১ ধারায় জরিমানা অথবা কারাদণ্ড হতে পারে।
  6. স্বেচ্ছাকৃত ভাবে কাউকে আঘাত করলে, যেমন চোখ উপড়ে ফেলা, এই জাতীয় আঘাতের ক্ষেত্রে দন্ডবিধি আইন হলো ৩২৬ এর ক ধারায় মৃত্যুদণ্ডের বিধান রয়েছে।
  7. আত্মহত্যার চেষ্টা করলে ৩০৯ ধারায় কারাদণ্ড দেওয়া হবে।
  8. কোন অপরাধীকে, অথবা নিজের বাড়িতে খুনির অপরাধীকে আশ্রয় দিলে দন্ডবিধি ২১২ ধারায় জেল অথবা জরিমানা এর বিধান রয়েছে।
  9. মিথ্যা কথা অথবা কোনো মিথ্যা তথ্য অথবা কোন মিথ্যা সংবাদ প্রচার করলে অথবা কাউকে বললে দন্ডবিধি ১৭৭ ধারায় জেল অথবা জরিমানা হতে পারে।
  10. কারো বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করলে বা করার চেষ্টা করলে দন্ডবিধি ২১১ ধারায় জেল অথবা জরিমানা হতে পারে।
  11. যদি কোন ব্যক্তি অপর ব্যক্তিকে দৈহিক অথবা কথার দ্বারা মানসিকভাবে আঘাত করলে  অথবা করার চেষ্টা করলে দন্ডবিধি ৩১৯ ধারায় জেল অথবা জরিমানা হতে পারে।

উপরের যে তথ্যগুলো দেয়া হয়েছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ সকলের জন্য। এজন্য অবশ্যই আপনার বন্ধুদেকে পোস্টটি শেয়ার করুন।

You cannot copy this post.