মাহমুদুল জয়ের দূর্দান্ত ব্যাটিংয়ে সিলেটকে হারালো কুমিল্লা

[ad_1]


নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্টে হিরো বনে যাওয়া মাহমুদুল হাসান জয় বিপিএলের এবারের আসরে দুইবার হাফ সেঞ্চুরির কাছে গিয়ে আউট হয়েছিলেন। তবে সিলেট সানরাজার্সের বিপক্ষে ৫০ বলে ৬৫ রানের ইনিংস খেলে সেই অপূর্ণতা ঘুচিয়েছেন তিনি। এরপর সুনীল নারিনের ক্যামিওতে কুমিল্লা জয় পেয়েছে ৪ উইকেটের ব্যবধানে।


এই ম্যাচে আগে ব্যাট করে কুমিল্লাকে ১৭০ রানের বড় লক্ষ্য দিয়েছিল সিলেট। জবাবে খেলতে নেমে শুরুতেই ওপেনার লিটন দাসের (৭) উইকেট হারায় কুমিল্লা। এরপর মাত্র ২ রান করে ফিরে গেছেন প্রোটিয়া তারকা ফাফ ডু প্লেসি।

তৃতীয় উইকেটে মঈন আলীকে নিয়ে দারুণ এক জুটি গড়ে কুমিল্লাকে ম্যাচে রাখেন মাহমুদুল হাসান জয়। হাফ সেঞ্চুরির দ্বারপ্রান্তে গিয়ে ৩৫ বলে ৪২ রান করে আউট হয়েছেন মঈন। যদিও জয় একপ্রান্ত আগলে রেখে ৪৬ বলে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন জয়। 

এরপর দ্রুতই অধিনায়ক ইমরুল কায়েসের উইকেট হারালে কুমিল্লার জয় নিয়ে শঙ্কা তৈরি হয়। দারুণ খেলতে থাকা জয় চড়াও হতে গিয়ে আলাউদ্দিন বাবুর বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন ৬৫ রান করে। তার ইনিংসটি সাজানো ছিল ২ ছক্কা ও ৭ চারে।

এর পরের বলেই কোনো রান করে আরিফুল হক বোল্ড হলে কুমিল্লার হাল ধরেন নারিন। তিনি ১২ বলে ২৪ রানের ক্যামিও খেলে দলটিকে জিতিয়ে মাঠ ছেড়েছেন। তার সঙ্গে আবু হায়দার রনি ৬ রান নিয়ে শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ছিলেন।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নামা সিলেটকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন দুই ওপেনার কলিন ইনগ্রাম ও এনামুল হক বিজয়।তিনি ৪৬ রান করে আক্ষেপে পুড়েছেন। এরপর শুরু হয় সিলেটের ব্যাটারদের আসা যাওয়া। ল্যান্ডল সিমন্স দারুণ শুরু পেলেও আউট হন মাত্র ১৬ রান করে।

রবি বোপারা ১ ও আলাউদ্দিন বাবু ১০ রান করে আউট হন। একপ্রান্ত আগলে রেখে গ্র্যান্ডহোম খেলেন ৬৩ বলে ৮৯ রানের ইনিংস। মূলত তার ব্যাটে ভর করেই বড় পুঁজি নিশ্চিত করে সিলেট। কুমিল্লার হয়ে একাই তিন উইকেট নিয়েছেন মুস্তাফিজুর রহমান। একটি করে উইকেট পেয়েছেন সুনীল নারিন ও তানভির হায়দার।



[ad_2]
Source link