দুর্গন্ধযুক্ত পাদ থেকে মুক্তির উপায়

দুর্গন্ধযুক্ত পাদ থেকে মুক্তির উপায় পাদ, পাদ  কি তা জানব। পাদ হওয়ার মূল কারণ। পাদ হওয়ার কারণ হলো আমার যখন খাদ্য গ্রহণ করি তখন খাদ্যের সাথে সাথে কিছু গ্যাস আমাদের পাকস্থলীতে চলে যায়,  সেই গ্যাস আমাদের মলদ্বার দিয়ে বেরিয়ে যায় তখন গ্যাসের সৃষ্টি হয়।

অথবা আমরা যখন খাদ্য গ্রহণ করি সে খাদ্য যখন পাকস্থলীতে সঠিকভাবে হজম না হয় তখন গ্যাসের সৃষ্টি হয়, সেই গ্যাস আমাদের বাটক বা মলদ্বার দিয়ে বেরিয়ে আসে তখন পাদের সৃষ্টি হয় সেটাকে আমরা পাদ বলে থাকি।

পাদ কি?

পাদ হল হজম এবং শ্বাস-প্রশ্বাসের ফলে ছোট অন্ত্রে গ্যাস জমা হওয়া। এটি একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া এবং সাধারণত স্বাস্থ্য উদ্বেগ নয়।

পাদের বিভিন্ন ধরন রয়েছে, কিছু নীরব এবং অন্যান্য জোরে এবং দুর্গন্ধযুক্ত। গ্যাস ছাড়ার আগে একজন ব্যক্তি কিছুটা ফোলাভাব এবং চাপ অনুভব করতে পারে।

পেট ফাঁপা হওয়ার বিভিন্ন কারণ রয়েছে, যার মধ্যে রয়েছে:

  • খাবার: কিছু খাবার, যেমন ব্রোকলি, ফুলকপি, মটরশুটি এবং ডিম, পেট ফাঁপা হওয়ার কারণ হতে পারে।
  • ওষুধ: কিছু ওষুধ, যেমন অ্যান্টিবায়োটিক এবং অ্যান্টিডিপ্রেসেন্ট, পেট ফাঁপা হওয়ার কারণ হতে পারে।
  • স্বাস্থ্য সমস্যা: কিছু স্বাস্থ্য সমস্যা, যেমন ইরিটেবল বাওয়েল সিনড্রোম (IBS), পেট ফাঁপা হওয়ার কারণ হতে পারে।

একটি সাধারণ পাদ বিভিন্ন গ্যাসের সমন্বয়ে গঠিত। এদের অধিকাংশই দুর্গন্ধযুক্ত নয়। সাধারণত, গন্ধ সালফার যৌগের বৈচিত্রের কারণে হয়, যা কিছু শাকসবজি এবং ডিমেও পাওয়া যায়।

পাদের গ্যাসগুলি মূলত নির্ভর করে:

  • খাওয়ার সময় কতটা গ্যাস গ্রাস করা হয়
  • অন্ত্রে ব্যাকটেরিয়া এবং জীবাণুর রাসায়নিক বিক্রিয়া
  • একজন ব্যক্তি কি খাবার খেয়েছে

পাদ কত প্রকার ?

আসলে পাদ কত প্রকার তা নির্দিষ্ট ভাবে বলা যায় না। তবে অনেকে মজা করে পাদের বিভিন্ন নাম দিয়েছে। কেউ বলে দুই প্রকার, কেউ বলে চার প্রকার, কেউ বলে আট প্রকার, আসলে পাদ কে আমরা কোন প্রকার ভেদ করতে পারে না।

আপনারা আগে থেকে জেনেছেন যে মানুষ  পাদ মারার কারণ হলো পাকস্থলী তে যদি কোন প্রকারে গ্যাসের সৃষ্টি হয় সেটি আমাদের মলদ্বার দ্বারা বেরিয়ে আসে অথবা এটি মুখ দিয়েও অনেক সময় বেরিয়ে যায়, বিশেষ করে খাওয়ার পর।

আমরা পাদের কোন প্রকারে ভাগ করতে পারি না। পাদ মানুষের শরীরের পিড়া থেকে মুক্তি দেয়। আমরা বিভিন্ন রোগ থেকে মুক্তি পায় পাদের মাধ্যমে।

পাদের কারণ এবং অন্যান্য উপসর্গ

দুর্গন্ধযুক্ত পেট ফাঁপা হওয়া সাধারণত ক্ষতিকারক নয়, তবে এটি গুরুতর স্বাস্থ্য সমস্যার লক্ষণও হতে পারে। সম্ভাব্য কারণগুলির সংখ্যার কারণে, দুর্গন্ধযুক্ত পেট ফাঁপা হওয়ার কারণ নির্ধারণ করা সবসময় সহজ নয়। দুর্গন্ধযুক্ত পেট ফাঁপা হওয়ার কারণগুলি সাধারণত খাবার, ওষুধ বা স্বাস্থ্য সমস্যার সাথে সম্পর্কিত।

খাবারের সাথে সম্পর্কিত কারণগুলির মধ্যে রয়েছে:

খাবারের প্রতি অসহিষ্ণুতা: কিছু লোক এমন খাবার খাওয়ার পরে দুর্গন্ধযুক্ত পেট ফাঁপা হওয়ার অভিজ্ঞতা অর্জন করে যা তাদের শরীর হজম করতে পারে না, যেমন দুগ্ধজাত পণ্য, মটরশুটি বা গম।
খাবারে উচ্চ ফাইবার: ফাইবার হজম করতে বেশি সময় লাগে, যা গ্যাস এবং ফোলাভাব তৈরি করতে পারে।

ওষুধের সাথে সম্পর্কিত কারণগুলির মধ্যে রয়েছে:

অ্যান্টিবায়োটিক: অ্যান্টিবায়োটিকগুলি অন্ত্রের স্বাভাবিক ব্যাকটেরিয়াগুলিকে মেরে ফেলতে পারে, যা গ্যাস এবং দুর্গন্ধ তৈরি করতে পারে।
অ্যান্টিডিপ্রেসেন্ট: অ্যান্টিডিপ্রেসেন্টগুলি পেট ফাঁপা হওয়ার একটি সাধারণ পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হতে পারে।
স্বাস্থ্য সমস্যার সাথে সম্পর্কিত কারণগুলির মধ্যে রয়েছে:

কোষ্ঠকাঠিন্য: কোষ্ঠকাঠিন্য হলে, মলদ্বার দিয়ে গ্যাস বেরিয়ে আসার সময় এটি আরও দুর্গন্ধযুক্ত হতে পারে।
ব্যাকটেরিয়া বা সংক্রমণ: ব্যাকটেরিয়া বা সংক্রমণ অন্ত্রে গ্যাস এবং দুর্গন্ধ তৈরি করতে পারে।
মলাশয়ের ক্যান্সার: মলাশয়ের ক্যান্সার হলে, মলদ্বার দিয়ে গ্যাস বেরিয়ে আসার সময় এটি আরও দুর্গন্ধযুক্ত হতে পারে।

যদি আপনার দুর্গন্ধযুক্ত পেট ফাঁপা হওয়ার সাথে অন্যান্য লক্ষণ থাকে, যেমন ওজন হ্রাস, কোষ্ঠকাঠিন্য বা ডায়রিয়া, তাহলে আপনার ডাক্তারের সাথে কথা বলা গুরুত্বপূর্ণ।

দুর্গন্ধযুক্ত পাদ থেকে মুক্তির উপায়

আমরা সংক্ষেপে আপনাদের সাথে শেয়ার করব যে কিভাবে আপনি দুর্গন্ধযুক্ত পাত থেকে মুক্তি পেতে পারেন।

  • আপনার যদি কষ্টোকাঠিনো সমস্যা থাকে তাহলে আপনি পাতলা খাবার বেশি খাবেন। এছাড়াও বিশেষ করে প্রতিদিন সকালে খালি পেটে ইসুবগুলের ভুসি খাবেন।
  • দুর্গন্ধযুক্ত পাদ তখনি হয় যখন আপনি আপনার মলদ্বার ক্লিয়ার না রাখেন। এক কথায় পায়খানা যদি না হয় নিয়মিত সেজন্য আপনাকে চেষ্টা করতে হবে প্রতিদিন পায়খানা করতে। অথবা চেষ্টা করবেন আপনার মলদ্বার সব সময় ক্লিয়ার রাখতে হবে।
  • খাওয়ার সময় তাড়াহুড়ো করবেন না।
  • খাওয়ার সময় মনোযোগ সহকারে খাবেন।
  • যে সকল খাবার খেলে আপনার পায়খানা ক্লিয়ার হয় না সেসব খাবার পরিহার করুন।
  • পাঁচ দিন অথবা সাদ দিন পায়খানা না হলে আপনি অবশ্যই ডাক্তার দেখাবেন অথবা প্রতিদিন সকালে বাসি পেটে ইসুবগুলের ভুসি খাবেন।

পাদ থেকে মুক্তির উপায়

পাদ থেকে কিভাবে মুক্তি পাবেন খুব সংক্ষেপে আপনাদের সাথে শেয়ার করব।

  • আপনারা যখন খাবার খাবেন তখন খাবার খাওয়ার আগে পানি খেয়ে নিবেন।
  • খাবার খাওয়ার সময় তাড়াহুড়ো করে খাবেন না।
  • খাবার খাওয়ার সময় চিবিয়ে চিবিয়ে ভালোভাবে মিক্সিং করে নেবেন।
  • খাবার খাওয়ার সময় মাঝেমধ্যে পানি খাবেন না। পানি খাবেন খাবার  খাওয়ার প্রথমে এবং খাবার খাওয়ার শেষে। পানি খাওয়ার সময় বায়ু প্রবেশ করতে পারে।
  • আপনার যদি কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা থাকে তাহলে গ্যাসের দুর্গন্ধ যুক্ত গ্যাসের সৃষ্টি হতে পারে, এজন্য আপনাকে পাতলা খাবার খেতে হবে।
  • আপনার যদি গ্যাসের সমস্যা থাকে তাহলে গ্যাসের বড়ি খেয়ে দিতে পারেন খাবার আধা ঘণ্টা আগে।

আরো পড়ূণঃ

সর্বশেষে আমরা বলিঃ আপনার যদি পায়খানা ক্লিয়ার না হয় অবশ্যই একটি বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নেবেন। এছাড়াও আমরা যে তথ্যগুলো আপনার সাথে শেয়ার করেছি সেগুলো আপনি নিজে মানতে পারেন। যদি কোন প্রকার উপকারিতা পান তাহলে অবশ্যই এই প্রবন্ধটি আপনার বন্ধু বা বান্ধবী কে শেয়ার করবেন।

This content is protected! By banglanewsbdhub