উপাত্ত কাকে বলে

উপাত্ত কাকে বলে: গণনা বা পরিমাপের মাধ্যমে প্রাপ্ত তথ্যই হলো উপাত্ত।

অন্যভাবে, সংখ্যাভিত্তিক কোন তথ্য হচ্ছে একটি পরিসংখ্যান। আর তথ্য নির্দেশক সংখ্যাগুলো হচ্ছে পরিসংখ্যানের উপাত্ত।

অন্যভাবে, নির্দিষ্ট কোন চলক বা একজাতীয় চলকের গুণগত এবং পরিমাণগত বৈশিষ্ট্য প্রকাশকারী তথ্যকেই বলা হয় উপাত্ত বা Data।

অন্যভাবে, পরিসংখ্যানে গণনা কিংবা পরিমাপের মাধ্যমে প্রাপ্ত তথ্যকেই বলা হয় data বা উপাত্ত।

অন্যভাবে, একটি নির্দিষ্ট বৈষিষ্ট্যের সংখ্যাবাচক নিদিষ্ট পরিমাপকে উপাত্ত বলে। এটাকে আরো সহজভাবে বলা যায়- গণনা বা পরিমাপের মাধ্যমে প্রাপ্ত তথ্যই কে বলা হয় উপাত্ত।

অন্যভাবে, গণনা বা পরিমাপের মাধ্যমে প্রাপ্ত তথ্যই হলো উপাত্ত।

অন্যভাবে, কোন একটি নির্দিষ্ট বৈষিষ্ট্যের সংখ্যাবাচক পরিমাপকে উপাত্ত বলে।

অন্যভাবে, কোন কিছু সম্পর্কে ধারণা লাভ করতে হলে সে সম্পর্কিত বিক্ষিপ্ত ডেটাকে যৌক্তিক পরিসজ্জায় উপস্থাপনকে তথ্য বলে।

অন্যভাবে, কোন নির্দিষ্ট বিষয়ের গণনা অথবা পরিমাপ এর মাধ্যমে প্রাপ্ত তথ্য কে উপাত্ত বলে।

উদাহরণঃ

উপাত্তঃ ধরা যাক কোন এক পরীক্ষায় ৯ম শ্রেণির অধ্যয়নরত ২০ জন শিক্ষার্থীর গণিতে প্রাপ্ত নম্বর হচ্ছে-

৫৫, ৭০, ৮৭, ৪৫, ৭৬, ৩৩, ৯৭, ৬৭, ৬৪, ৯৩, ৬৮, ৭৬, ৪৫, ৭৩, ৬৮, ৪৮, ৯০, ৬৬, ৬৪

এখানে উপরের নম্বর সমূহ এ তালিকার একটি পরিসংখ্যান। সুতরাং সংখ্যা দ্বারা প্রকাশিত যে কোন তথ্যই পরিসংখ্যানের উপাত্ত।

পরিসংখ্যানের উপাত্ত কত প্রকার ও কি কি?

পরিসংখ্যানের উপাত্ত ২ প্রকার।

(ক) প্রত্যক্ষ বা প্রাথমিক উপাত্ত
(খ) পরোক্ষ বা মাধ্যমিক উপাত্ত

প্রাথমিক উপাত্ত কাকে বলে
প্রাথমিক উপাত্তঃ উপরে বর্ণিত পরীক্ষায় গণিতে প্রাপ্ত নম্বরগুলো প্রাথমিক উপাত্ত।

অন্যভাবে, উপাত্ত যদি উৎস থেকে সরাসরি সংগৃহীত হয়, তবে সেসব উপাত্তকে প্রাথমিক বা প্রত্যক্ষ উপাত্ত বলা হয়। উৎসের মাধ্যমে সরাসরি যে উপাত্ত সংগৃহীত হয় তাকেই প্রাথমিক উপাত্ত বলা হয়।

অন্যভাবে, সরাসরি যে উপাত্ত সংগ্রহ করা হয় সেটাকে বলা হয় প্রাথমিক উপাত্ত।

অন্যভাবে, এরূপ উপাত্ত অনুসন্ধানকারী সরাসারি উৎস থেকে সংগ্রহ করতে পারে।

মাধ্যমিক উপাত্ত কাকে বলে
যেসব উপাত্তগুলো পরোক্ষ উৎস থেকে সংগৃহীত হয় তাদেরকে মাধ্যমিক উপাত্ত বলে।

অন্যভাবে, মাধ্যমিক উপাত্তঃ পরোক্ষ উৎস থেকে সংগৃহীত উপাত্ত সমূহকে মাধ্যমিক উপাত্ত বলে।

অন্যভাবে, পরোক্ষ উৎস থেকে সংগৃহীত উপাত্ত হচ্ছে মাধ্যমিক উপাত্ত।

অন্যভাবে, যেই উৎসগুলো পরোক্ষ উৎস থেকে সংগৃহীত হয় তাকে মাধ্যমিক উপাত্ত বলে। যেমন– ঢাকা, খুলনা, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের জুলাই মাসের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা যথাক্রমে ২৯°C, ৩২°C, ৩১°C, ও ৩০°C।

তথ্যের বিন্যাসের উপর ভিত্তি করে পরিসংখ্যানে উপাত্ত ২ ধরণের হয়ে থাকে।

  1. বিন্যস্ত উপাত্ত
  2. অবিন্যস্ত উপাত্ত

বিন্যস্ত উপাত্ত: সংগৃহীত উপাত্তকে কোন বৈশিষ্ট্য অনুযায়ী বিন্যাস করা হলে সেধরণের উপাত্তকে বিন্যস্ত উপাত্ত বলা হয়ে থাকে।

যেমন – ৫ জন শিক্ষার্থীদের ওজন যথাক্রমে, ৪৯, ৪২, ৪৫, ৪৭, ৪১ কেজি।

অবিন্যস্ত উপাত্ত: সংগৃহীত উপাত্ত কোন বৈশিষ্ট্যের ভিত্তিতে বিন্যাস করা সম্ভব না করা হলে, অর্থাৎ এলোমেলো থাকলে সেসব উপাত্তকে অবিন্যস্ত উপাত্ত বলা হয়ে থাকে।

যেমন – ৫ জন শিক্ষার্থীদের ওজন যথাক্রমে, ৫২, ৩৭, ৪৫, ৪১, ৪৯ কেজি।

উপাত্তের বৈশিষ্ট্যের ভিত্তিতে উপাত্তকে ২ ভাগে ভাগ করা যায়।

  1. গুণবাচক উপাত্ত
  2. পরিমাণবাচক উপাত্ত

গুণবাচক উপাত্ত:
কোন গবেষণা বা পর্যবেক্ষণে নির্দিষ্ট কোন বৈশিষ্ট্য বা গুণের উপস্থিতি, প্রকৃতি, অবস্থাকে পর্যবেক্ষণ করে উপাত্ত তৈরি করা হয়, সেসব উপাত্তকে বলা হয় গুণবাচক উপাত্ত।

পরিমাণবাচক উপাত্ত:
পরিমাপযোগ্য তথ্যের সাহায্যে প্রাপ্ত পরিমাণ নির্দেশক উপাত্তকে বলা হয়, পরিমাণবাচক উপাত্ত।

তথ্য ও উপাত্ত কাকে বলে

তথ্য কাকে বলে?
উপাত্তের সঠিক প্রক্রিয়াকরণের মাধ্যমে তথ্য (Information) পাওয়া যায়।

উপাত্ত কাকে বলে?
ইনফরমেশন বা তথ্যের ক্ষুদ্রতম এককই হচ্ছে উপাত্ত (Data)।

তথ্য এবং উপাত্ত এর পার্থক্য

  1. সব উপাত্তই তথ্য নয়। অন্যদিকে সব তথ্যই উপাত্ত হতে পারে।
  2. উপাত্ত রূপান্তরের সময় সমস্ত অপ্রাসঙ্গিক তথ্য এবং পরিসংখ্যান বাছাই করা হয়। কিন্তু তথ্য সবসময় তার প্রয়োজনীয়তা এবং প্রত্যাশার জন্য সুনির্দিষ্ট।
  3. ডেটা হচ্ছে প্রক্রিয়াকরণের পূর্বের অবস্থা। তথ্য হচ্ছে প্রক্রিয়াকরণের পরের অবস্থা।
  4. সুনির্দিষ্ট ফলাফল পাওয়ার জন্য প্রক্রিয়াকরণে ব্যবহৃত কাঁচামাল সমূহকে ডেটা বা উপাত্ত বলে। অন্যদিকে ডেটাকে প্রক্রিয়াকরণ করে যে অর্থবহ ফলাফল পাওয়া যায়, তাকে তথ্য বলে।
  5. উপাত্ত দ্বারা যে কোন বিষয়ে পুরোপুরি ভাবার্থ প্রকাশ পায় না। অন্যদিকে তথ্য দ্বারা যে কোন বিষয়ে পুরোপুরি ভাবার্থ প্রকাশ পায়।
  6. উপাত্ত তথ্যের কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহার করা হয়। অন্যদিকে ডেটা প্রক্রিয়াকরণের পর তথ্যে রূপান্তরিত হয়।
  7. উপাত্ত সরাসরি ব্যবহার করা যায় না। অন্যদিকে তথ্য সরাসরি ব্যবহার করা যায়।

উপাত্ত কাকে বলে?

গণনা বা পরিমাপের মাধ্যমে প্রাপ্ত তথ্যই হলো উপাত্ত।

পরিসংখ্যানের উপাত্ত কত প্রকার ও কি কি?

পরিসংখ্যানের উপাত্ত ২ প্রকার। (ক) প্রত্যক্ষ বা প্রাথমিক উপাত্ত (খ) পরোক্ষ বা মাধ্যমিক উপাত্ত

You cannot copy this post.