Monday, May 16, 2022
Homeবাংলা ডাক্তারমুলতানি মাটির দাম উপকারিতা ও ব্যবহারের নিয়ম জানুন

মুলতানি মাটির দাম উপকারিতা ও ব্যবহারের নিয়ম জানুন

মুলতানি মাটির দাম জানার আগে চলুন মুলতানি মাটি কি সে সম্পর্কে জেনে নিই। মুলতানি মাটি হলো পাকিস্তানে মুলতান শহররে পাওয়া মাটির নাম। ১৮০০ শতাব্দীতে পাকিস্তানের মুলতান শহররে মুলতানি মাটি সর্বপ্রথম পাওয়া যায়। মুলতান শহরের নাম অনুসারে মাটির নাম মুলতানি রাখা হয়। এই মাটি আদি যুগ থেকে শরীরের বিভিন্ন অঙ্গের উজ্জ্বলতা বাড়ানোর জন্য বিশেষ ভূমিকা পালন করে আসছে ।

মুলতানি মাটির দাম

মুলতানি মাটির দাম কত? মুলতানি মাটির এক প্যাকেটের দাম ৫০ টাকা থেকে শুরু করে ৯০ টাকা, ৩০০ টাকা,৫০০ টাকা ৬০০ টাকা হতে পারে। তবে আপনি যেখানেই মুলতানি মাটি কেনেন যাচাই বাচাই করে কিনবেন কারন এখনকার সময় আসল জিনিস পাওয়া খুবিই কষ্ট সাধ্যবিষয়। তাবে স্থান ও দকান ভেবে এর দাম পরির্বন হবে পারে।

মুলতানি মাটির ছবি

মুলতানি মাটির ছবি
মুলতানি মাটির ছবি

মুলতানি মাটি কোথায় পাওয়া যাবে

মুলতানি মাটি কি সহজ ভাবে বলতে গেলে পাকিস্তানে মুলতান শহররে পাওয়া মাটির নাম। জা আদি কালে রানীদের ত্বককে উজ্জল রাখতে ব্যবহার করা হত। এই বিশেষ করে আপনি অনলাইনে অডার দিতে পারেন।

মুলতানি মাটির উপকারিতা

মুলতানি মাটি দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায় আছে। আপনি জদি এটি সঠিকভাবে ব্যবহার করেন। এই মাটির উপকারিতা ব্যপক। এই মাটি ব্যবহাররে আপনার ত্বককে উজ্জ্বল রাখতে সাহায্য করবে। চনুন জেনে নিই মুলতানি মাটি দিয়ে ব্রণ দূর করার নিয়ম;

  • এটি আপনার ত্বককে ঠাণ্ডা করা থেকে শুরু করে ত্বককে উজ্জ্বল করবে।
  • এই মাটিতে রয়েছে লুমিনিয়াম, সিলিকেট এবং উচ্চ শক্তির মতো বিভিন্ন পুষ্টিতে সমৃদ্ধ উপাদন জা আপনার ত্বককে উজ্জ্বল করে তোলে।
  • তৈলাক্ত ত্বকের জন্য মুলতানি মাটি খুবই উপকারী।
  • আপনার হাতের কাছে যদি মুলতানি মাটি থাকে, তাহলে আপনার মুখের যে জায়গায় ব্রণ দেখা দিয়েছে বা হওয়ার সম্ভাবনা আছে সেখানে রাতে ঘুমানোর আগে লাগিয়ে রাখবেন, উপকারিতা হলো আপনার ব্রণনের অস্তিত্ব থাকবে না।
  • মুলতানি মাটি ত্বকের ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া মেরে ফেলে এবং ত্বকের অতিরিক্ত তেল দূর করে পরিষ্কার করে। এজন্য এটি এত উপকারি।
  • এটি ত্বককে শীতল অনুভূতি দেয় এবং ব্রণের কারণে সৃষ্ট তীব্র প্রদাহ থেকে মুক্তি দেয়।
  • এই মাটি ত্বক টানটান রাখতে সাহায্য করে।

মুলতানি মাটি ব্যবহারের নিয়ম

মুলতানি মাটি ব্যবহারের নিয়ম হলো আপনি প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর আগে আপনার মুখে লাগিয়ে শুয়ে পড়বেন। এর ফলাফল জদি আপনি পরের দিন না পান তাহলে, প্রতিদিন ব্যবহার করবেন জত দিন আপনি এর ফল না পান। কারন এই মাটি প্রতি দিন ব্যবহার কোণো প্রকার ক্ষতি নাই। এখন প্রশ্ন আছে এই মাটি কতদিন যাবত ব্যবহার করা যাবে। আমরা মনে করি আপনি জদি সঠিক নিয়োমে ব্যবহার করেন তাহলে এর রেজান্ট খূব দ্রুত পাবেন।

মুলতানি মাটির ফেসপ্যাক

মুলতানি মাটি ফেসপ্যাক এর সম্পর্কে কয়েকটি প্রধান পয়েন্ট আলোচনা করা হলো।

  • ত্বকে মুলতানি মাটির সঙ্গে লেবুর রস লাগাতে পারেন।
  • ডিমের সাদা অংশ দিয়ে মুলতানি মাটির অংশ তৈরি করে একটি ফেসপ্যাক তৈরি করুন। এই ফেসপ্যাকটি আপনার ত্বকের কালো দাগের সমস্যা দূর করবে।
  • বাদাম এবং দুধ দিয়ে বাদামের প্যাক তৈরি করুন। এই ফেসপ্যাকটি আপনার ত্বকের কোমলতা রক্ষা করবে।
  • ত্বক ঠান্ডা রাখতে মুলতানি মাটি ও পুদিনার প্যাক ব্যবহার করতে পারেন। এজন্য মুলতানি মাটি দিয়ে ত্বকে পুদিনা পাতার পেস্ট লাগান।
  • মুলতানি মাটির সাথে টমেটোর পেস্ট ও দই মিশিয়ে ত্বকের কলকাঠিন্যের সমস্যা দূর করে। এই কম্বিনেশনটি আপনার গায়ের রংও উজ্জ্বল করবে।
  • চন্দন এবং মুলতানি মাটির ফেসপ্যাক আপনার ত্বকের জ্বালাপোড়া সমস্যা দূর করতে সহায়ক।
  • অতিরিক্ত নকল তৈলাক্ত ভাব ত্বকে ব্যবহার করুন মুলতানি মাটি ও গোলাপ জলের প্যাক।

 

আরো পড়ুন ;

মুলতানি মাটি ও গোলাপ জলের ব্যবহার

ব্রণ আমাদের সৌন্দর্য ও সৌন্দর্যের প্রতিবন্ধক। কিশোর থেকে শুরু করে মধ্যবয়সী ছেলে-মেয়ে প্রায় সবাই এই সমস্যায় ভুগছেন। এবং একটি সমাধান খুঁজছেন যা সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক। এদিকে আপনার ব্রণ ও ব্রণের দাগ দিন দিন বেড়েই চলেছে। তো বন্ধুরা, মুলতানি মাটি ও গোলাপজল ব্যবহার করলে মাত্র ৩ দিনেই ব্রণ থেকে মুক্তি পেতে পারেন।

  • মুলতানি মাটি ও গোলাপজল দিয়ে তৈরি ফেসপ্যাক তৈলাক্ত ত্বকের জন্য কার্যকর। এটি ত্বকের পিএইচ লেভেল ঠিক রাখে এবং অতিরিক্ত তেলের সমস্যা দূর করে।
  • উপকরণ: 1/4 বা 1/5 কাপ মুলতানি মাটি, দুই টেবিল চামচ গোলাপ জল।
  • প্রণালী: দুটি উপাদান একসঙ্গে মিশিয়ে মিহি পেস্ট তৈরি করুন। মুখ এবং ঘাড়ের ত্বকে প্যাকটি শুকানো পর্যন্ত অপেক্ষা করুন, তারপর ধুয়ে ফেলুন।
  • সপ্তাহে তিন দিন নিয়মিত ব্যবহারে ভালো ফল পাওয়া যায়।

 

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments